The Migrant Worker Poetry Contest Organizing Committee comprises of a group of volunteers: Shivaji Das, Vishal Daryanomel, Gopika Jadeja, Noreen, Ting Mak Yu, Rolinda Onates Espanola, Ohim Rohimah, Yolanda Yu, AKM Mohsin, and Abhineet Kaul.

© 2019 by Abhineet Kaul

  • facebook-square

2014 Winners

  1. Zakir Hussain Khokon

  2. Rajib shil Jibon

  3. N Rengarajan

Other shortlisted:

  • Jahangir Alam Babu

  • Mohor Khan

  • Monir Ahmod

  • Md  Sharif

  • Syeidur Rahman Liton

Shortlisted Entries 2014

Zakir Hussain Khokhon (Pocket 2)

Pocket 2

 

Still in the same world, we belong to different spheres

You on that side and me on this:

we can do nothing but remember each other

The memories of you and me hang like posters

on the wall of the Ekushe bookfair

at the doil chatta, under the shade of the bakul tree at Charukala

at Hakim square, in the hoodless rickshaw

at the florists of Shahbag, at the open field of TSC

on the water of Ramana lake

in a night of shades and lights

on our bed of love

 

I remember when I returned this time

my heart dissolved in your tears

The pocket of my shirt was wet

Reaching the end of my memories

I wear that shirt every night

and write love poems to you

Do I really write poems

Or do my poems cry with me?  

 

Second in a set if three poems with ‘pocket’ as the main conceit. The first one is about the poet’s son, the second about his wife and the third about his father. 

Rajeeb Shil Jibon (Aadho aalo aadho andhar)

Shades of light and dark

 

Perhaps I experience something.

The feather touch of a tender heart, a flutter

A night of wakefulness

Light and dark at play, floating in the moonlight

Perhaps I am waiting for someone, and someone for me.

Perhaps of an evening, a garden of clouds would desire me,

only me. In a warm magpie forest, 

constellations whisper.

 

Perchance I lose myself in a dream

A generous shade lulls me to sleep in broad daylight

And the vortex of sand and water pulls me in.

 

Perhaps I am waiting at the gates of a kingdom.

A bird, a strand of grass hides in my world

The breeze from the sails of the horizon

raising the rhythm through the calm nocturnal sea.

 

Perhaps I will see a kite looking for its string

A rain drop paused, a search waiting in front of me

Maya unspooling a mountain of illusions

calling us by waving discarded feathers

 

Perhaps I will step into the rumblings of a forest

A leaf, a summer, surrounded by the golden sun

on a field full of harvest

A lonely elusive call losing faith and closing its fists.

 

Perhaps I am waiting for a time

An impression, a smell or an empty house

A feeling of silent tiredness

Walking down the path of prose that excites my soul.

আধো আলো আধো আঁধার’


আমি হয়তো কোন কিছু অনুভব করছি,
একটা কোমল মনের বা একটা আলতো স্পর্শের, কোন শিহরণের,
হয়তো জেগে থাকা একটা পূর্ণ রজনীরও ।
আধো আলো আধো আঁধার ভাসায় জোছনার জলসায় ।

আমি হয়তো কারো জন্য অপেক্ষা করছি, হয়তো কেউ আমার জন্য ।
একটা বিকেল, একটা মেঘের বাগান হয়তো আমাকে চায়ই চায় ।
শালিকবনে উষ্ণ আকাশের নক্ষত্র চুপিসারে কথা বলে যায় ।

আমি হয়তো কোন একটা স্বপ্নের কাছে হারিয়ে যাচ্ছি,
দিনদুপুরে বট বৃক্ষের ছায়া হয়তো নিদ্রায় মগ্ন করেছে আমায় ।
বালি আর পানির সাথে মিশে যাওয়া স্রোত যেন আমাকে কাছে টানে ।

আমি হয়তো কোন একটা রাজ্যে প্রবেশের দ্বারে বসে আছি,
একটা পাখি, একটা ঘাস হয়তো লুকিয়ে আছে আমার ভুবনে ।
দিগন্তের পালের হাওয়া নিরন্তর সুর তুলেছে নিশীথ সমুদ্রের ।

আমি হয়তো কোন একটা সুতোর কাঙাল ঘুড়ি দেখতে পাবো,
একটা ক্ষান্ত বৃষ্টি, একটা অন্বেষণ হয়তো শিয়রে দাঁড়িয়ে আছে ।
ইন্দ্রজাল হয়তো মায়ার পাহাড় বিছিয়ে ঝরা পালক নেড়ে ডাকছে ।

আমি হয়তো কোন একটা অরণ্যের কোলাহলে পাড়ি দেবো,
একটা পাতা, একটা বৈশাখ হয়তো ফসলী জমির স্বর্নালি রোদ্দুর ঘিরে ।
নির্জনতা অধরা আবাহন মুঠো বন্ধি ফিরে আসা বিশ্বাসে হারাচ্ছে ।

আমি হয়তো কোন একটা সময়ের জন্য অপেক্ষা করছি,
একটা ছাপের, একটা গন্ধের হয়তো কোন একটা শুন্য ঘরের ।
চলমান নীরবতা গদ্যের পথ ক্লান্তির অবিরত আন্দোলন ক্ষণে ক্ষণে ।
 

N Regarajan (Soozhnilai Sollidhandavai)

Lessons from Circumstance

 

Dowry

 

O Firefly!

Have you also engaged

your daughter to be wed?

Does the fear of dowry

burn in your belly too as fire?

 

Mother

 

When

I fell, not knowing how to walk,

you would pick me up

But

when you fell, unable to walk

I pushed you

away. Regards, the

modern, (un)civilized family

 

 

Money

 

A peculiar disease.

 

The world's deadliest afflictions

cancer, AIDS, ebola,

even love

kill by their presence.

 

Money alone

kills by absence. 

 

This poem uses much alliteration, a popular device in Tamil poetry. The words ‘I’ and ‘you’ (which are repeated several times in the original) in Tamil are alliterative words. 

These taught me the truth

 

"Dowry"

 

Hey firefly

Did you also stop the engagement of your daughter?

Is it because your stomach burns due to dowry

which is why you show the flame so flamboyantly!

 

"Mother"

 

When I fell down without knowing how to walk

You picked me up

But when you fell down

I ignored it!

With regards,

the new nuclear (ungrateful) family!

 

"Money"

 

One weird disease

the world’s most disastrous diseases such as Cancer, AIDS and EBOLA

including love kills a man only when someone gets it!

 

But money weirdly kills 

when someone doesn’t get it!

Sharif (Shromiker Pothchola)

A Worker’s Journey

 

The longing of a sleepless brain

For a golden morning

For a break in the rhythm

For the beginning of the race

In summer or in monsoon

I have to run, keep running

 

From tiredness and misery

the best claims its right

The heart erodes in lament

And the game of war begins

And so begins the deluge

Sometimes for a moment

Sometimes for a day

I have to run, keep running

 

Deep inside the heart

with a mournful cry in the guise of valour

I return to this hellpit

The realization of dreams begins

The journey begins

At times I belong to this country

At times to that

I run, I have to run. 

শ্রমিকের পথচলা
 

 শরীফ

নিদ্রাহীন মস্তিষ্কের অপেক্ষা
একটা সোনালী ভোরের
শুরু হয় ছন্দপতন
শুরু হয় ছুটে চলা
কখনো গ্রীষ্ম কখনো বর্ষা
ছুটে চলা শুধু ছুটে চলা ।
ক্লান্তি বিষাদে শ্রেষ্টত্তের অধিকার
অনুতাপে ক্ষয়ে যায় রিদয়
শুরু হয় যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা
শুরু হয় জলান্জলী
কখনো ক্ষানিক সময় কখনো সারাবেলা
ছুটে চলা শুধু ছুট চলা ।
বুকের গহীনে বিষাদের কান্না
বীরবেসে আস্তাকূড়ে ফিরে আসা
শুরু হয় স্বপ্ন পূরন
শুরু হয় পথ চলা
কখনো এ দেশ আমার কখনোবা ও দেশ
ছুটে চলা শুধু ছুটে চলা ।

Syedur Rahman Liton  (Nobin Borshe )

Mohinuddin (He Shromik)

My Wishes for the New Year

 

In the New Year I hope for

Kashmir and other lands to be free

all the dispossessed of the world to be loved

all the enslaved nations to be free

the bloodthirsty warmongers of the world

to become calm

all the problems of Iraq and Palestine

to be washed away

the word to be free from the shadow of war

violence and bad omens to be wiped away

 

In the New Year I hope

mornings will be free from torture and murder

everyone will love everyone

everyone will avoid discord

everything will be enlightened

with the touch of progress

we’ll purify ourselves in the religion of good

O Worker!

 

The wind flows

Drained, you are sad

Hopeful, you still search for a flash of green

Thirsty from the scorching sun, parched,

at times you ask the sky for a drop of water

You wake up again and again from a tired sleep

You craft this world

Hungry, you watch at times

the poetry in the bird’s flight

Till now I have not said, O Workers

you are the best poets of the world

From the dust you build the civilised city

 

Now is your time, only yours—

No more bowing your head

Look up at the sun

No more looking back

Look at the mountains

No more waiting

Look at the long road to run

 

Speak, what you want

With vision from the horizon

see the stars and the moon

shining on your body 

Nurul Islam Bulbul (Bhaobhashi)

Love you

 

Watching the eager waves breaking on the shore

I want to say I love you

Looking at the mountain I want to lay my head

along its side and say I love you

With the beautiful green stretching to the horizon

I want to say I love you

In a garden of sheouli, in the calm of the moonlit night

I want to whisper in your ears I love you

Feet bare on the dew draped morning grass,

My heart says I love you

In the cow dust hour swelling birdsong

Your hand firmly in mine I will say I love you

With moist monsoon eyes, where the kadamb blossoms

warmth spreading in my heart, I will say I love you

In the morning, sipping a cup of steaming coffee

Steadfast, I will say I love you

In the relentless cold or the spring storm dark

Hiding you in the folds of my heart

I will tell you secretly, I love you

With dreams of love that fill this grubby

directionless life  

darling wife,  I love you 

Monir Ahmod (Pother Sishu)

পথের শিশু

 

তোমারাতো খোঁজো নতুনের স্বাদ উল্লাস কর ঈদে।
ভুলেও দেখো না পথের শিশুর পেটে জমা খিদে।
তোমরা খোঁজো ভোগ বিলাসিতা,
প্রণামে মগ্ন কোরান গীতা,
দেখো নি আজো  গরীব-দুঃখীর কষ্ট কোথায় বিধে।

তোমরাতো সব পূজায় মেতেছো দুর্গা মা এলো ঐ।
অনাহারী কেউ যদি বলে "আমি কি পূজক নই?"
পূজার প্রসাদে ঈদের চাঁদে, কিতাবে এর উত্তর কই!
উত্তর খোঁজো রাত্রি-দুপুরে প্রেম বিরহে জিদে।
উল্লাসে কেন পথের শিশু করে খিদে খিদে?

তোমরা পড়েছ বুদ্ধের বাণী, ডুবে গেছো বাইবেলে।
ভুলে গেছো সব স্রষ্টা হতে কেযে কি নিয়ে এলে।
দু'পিঠ পড়ে এসোগো বন্ধু বিবেকের আগুন জ্বেলে।
রঙিন মর্ত্যে কাদের আবর্তে মানবতা রয় নিদে?
প্রশ্ন তারে কেন উল্লাসে শিশুদের খিদে খিদে?

তোমরা করো স্রষ্টারে নমঃসৃষ্টিরে দাও লাথি।
রঙিন দেয়ালে খেয়াল কর তুমিই মানুষ জাতি।
বৃথাই তোমাদের বিশ্ব ভ্রমণ বিভক্ত সম্প্রীতি।
স্রষ্টা শুধু করেনা বসত মন্দিরে মসজিদে।
তোমার হাসিতে স্রষ্টা হাসে শিশুর কষ্টে কাঁদে।

___শ্রমিক মনির
২৬জুলাই ১৪

Street child

 

You look for new flavours

You celebrate Eid

and forget to look

at the hunger

of the child on the street

 

You search for pleasure and luxury

Immerse yourself in worshipping

the Koran and the Gita

but you do not see

the pain of the poor

 

While you celebrate

the coming of Ma Durga

if a hungry one asks

“Am I not a worshipper too?”

will you find the reply in your prasad

or the moon of the Eid

or in your holy books?

 

In your nights and days,

in parting, in insistence.

you search for the answer

why the child on the street

screams ‘hunger’.

 

You’ve studied

the teachings of the Buddha

Immersed yourselves in the Bible

But you don’t remember

the gifts of the creator

 

Light your conscience

and come, my friend

 

In this colourful world

why does humanity sleep?

Ask him why the street child

screams ‘hunger’

while you celebrate?

 

You worship the Creator,

care nothing

for the Creation.

 

In this colourful world

You think only you

are human.

 

All your travels across the world  

and all these divided relations

are in vain

 

The creator does not belong

only to the mosques and temples

 

When you laugh, the creator laughs

but he also cries

when the child on the street cries

 

This poem has been written in the swarabritta metre. It is a principal metre of Bengali poetry and was popularised by Tagore. It is simpler than the more classical metres and its rhythm can be most often found in folk songs, oral poetry and nursery rhymes. The characteristic "bol" or sound of the "dhak", a folk drum traditionally played in Bengal on festive occasions, has the same rhythm as "swarabritta" rhythm. 

Mohor Khan (Pashan) 

Stonehearted

 

In the morning  

the scream of a lonely child,

his mother foraging for food.

A crow sitting on an empty dustbin

driven by the pain of hunger

looking for leftovers.

Her eyes, her breasts

Dry.

 

Not a prostitute, she

stands by the road.

A drunkard passes by

uninterested in her story.

Through the cornices

of the mansions in the city

can anyone hear the scream?

 

In luxury, humanity

has turned to stone.

Lost in self-interest

do they know where

honour is?

 

Having lost the wealth

of their heart

they look for the gates

of hell

and point at the child—

a bad omen.

 

A variation on the Petrarchan sonnet, this poem uses lines of 14 syllables popularised by Michael Madhusudan Dutt in Bengali. The translation does not follow the metrical form.  

পাষাণ (চতুর্দশপদী /সনেট)

মোহর খান

প্রভাতে নিঃসঙ্গ এক    শিশু র  চিৎকার
জননী শিশুর  তরে    খুঁজছে   আহার।
বসে আছে সারমেয়   শূন্য ডাস্টবিনে
ক্ষুধান্বিত  যন্ত্রণায়     ঝুটা'র  সন্ধানে,
জননী তা দেখে কাঁদে  জলহীন  চোখে,
শিশুদুগ্ধ ভান্ডার  ও    শুকিয়েছে  বক্ষে,
সে বিভোর কে জানালো  আপন বারতা
বিভোর প্রস্থান হলো    সে নই পতিতা।।

এ শহরে   প্রাসাদের     কার্নিশের ফাকে
কেউ কি  শুনতে পাও  ঐ শিশুর ডাকে?
বিলাসে মানব জাতি     হয়েছে পাষাণ
নিজ স্বার্থ তরে  খুঁজে   কোথা আছে মান,
ঐশ্বর্য  হারায়ে  খুঁজে     নরকের পথ
তারা ঐ শিশু দেখিয়ে     মনে  ভাবে  বদ।

বিঃদ্রঃ মধু কবি, কবি মিল্টন,কবি পেত্রার্ক  ও  কবি মোহিত লাল মজুমদার  তাঁরা সনেটের অন্ত মিল স্বাধীনতা রেখেছে তাই আমি ক+খ,গ+ঘ--  -- -  --- এই  রীতি সুমধুর
কারণে  ব্যবহার  করলাম।

Jahangir Alam Babu (Jogyo Kaaj Nyajyo Mojuri Chai)

Fair Day’s Work for a Fair Day’s Pay

 

1st May

One day only for workers

One day soaked in a year of tears

As the workers of the world celebrate their day

their masters with red eyes secretly calculate—

how much loss for this one day of celebration?

In America where it all began

many lives lost to put a limit to the working hours

Haymarket Massacre Chicago 1886

Many martyrs’ lives cut short

to limit the endless working day

Amsterdam 1904

They raised their voices

“No working day longer than eight hours”

Now more wages for more work

 

We need a holiday, a day only for workers

For daily labourers

From Haymarket in Chicago to every corner of the world

This day only of the sweat-soaked workers

The Muslims have Eid, Hindus have Puja, Christians Christmas

The tribe of workers has only one day, May Day

I don’t understand the Left, I don’t recognise the Right

I have only one loyalty, the class of workers

I am a worker, a daily worker

I speak the language of the heart

I, the worker, set the water on fire

Workers of the world unite,

raise your voice and say

“Fair day's work for a fair day's pay”

Long live, Mayday! May the workers win!

 

Migrants in a foreign land

No protests, no riots, no violence

be friendly, prove your worth

Bring honour to your country

Workers of Singapore have united

under the flag of Bangladesh

They write poetry, sing songs

They perform on the stage

All week long they sweat

When Sunday arrives

they fill the stage of Dibashram

with poetry, song and happiness

Immersed in picnics, sports and songs

on the beaches of dreamland Singapore

they will forget the drudgery of hawkers and brokers

the rhythm of hammers

In a festival of workers with dance and laughter rising

they will not forget to raise their voices to say—

“Fair day's work for a fair day's pay” 

যোগ্য কাজ,ন্যায্য মুজুরী চাই। 
 

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু

একটি দিন শুধু শ্রমিকের ১ মে প্রতি বছরের অশ্রু সিক্ত শ্রমিক,

বিশ্ব শ্রমিক যখন দিবস পালনে ব্যস্ত 
মালিক শ্রেণী চোখে রক্ত, মনে মনে ভাবে শুধু
এক দিনে কত হলো লোকসান হয়ে গেল সমস্ত। 
এই দিনের শুরু আমেরিকা,
প্রাণ দিয়ে এনেছিলো কাজের সময় সীমা।
১৮৮৬ সালে আমোরিকার শিকাগো শহরের
হে মার্কেটের ম্যাসাকার শহীদদের আত্মত্যাগ
আজ কার্য সীমা আট ঘন্টা .
১৯০৪ সালে আমস্টারডাম উঠেছিলো আওয়াজ 
আট ঘন্টার বেশী নয় কাজ,যদি হয় বেশিকাজ দিতে বেশি দাম 
চাই ছুটি বছরে একদিন,যে দিন হবে শুধু শ্রমিকের,দিন মুজুরের। 
শিকাগোর হেগে থেকে সারা বিশ্বে, এই দিবস,শুধুই ঘাম ঝরানো শ্রমিকের। 
মুসলিমের ঈদ, হিন্দুদের পূজা,খ্রিস্টানের বড় দিন 
শ্রমিক জাতির একটাই দিন,শ্রমিক দিবস, মে মাসের প্রথম দিন।
বাম দল বুঝি না,ডান দল চিনি না,আমার একটাই দল,শ্রমিকের দল.
আমি শ্রমিক,আমি দিন মুজুর,মনিরের ভাষায় বলি 
আমি শ্রমিক পানিতে জ্বালাই আগুন।
পৃথিবীর শ্রমিক এক হও তোল আওয়াজ,চাই ন্যায্য মুজুরী যোগ্য কাজ। 
সফল হোক শ্রমিক দিবস,জয় হোক মেহনতি মানুষের।
প্রবাসে এসে ভীন দেশে নয় আন্দোলন নয় ভাঙচুর প্রতিবাদ
মৈত্রীর বন্ধনে তুলে ধরো যোগ্যতা রাখো দেশের সন্মান।
সিঙ্গাপুরের শ্রমিকরা বাংলার কন্ঠের পতাকা তলে সমবেত হয়েছে 
লিখে কবিতা গায় গান,মঞ্চে চলে সুরের আর অভিনয়ের দাপট 
সপ্তাহ জুড়ে চলে শরীরের ঘাম ঝরানি,

রবিবার এলেই কবিতায় সঙ্গীতে সুখের দোলায় দিবাস্রমের মঞ্চখানি। 
পিকনিক পিকনিক বনভোজন,খেলাধুলা গানে মাতবে সবাই 
সমুদ্র সৈকতে,মন হরিণী সিঙ্গাপুরে,ভুলে যাবে চাঙ্কু হেকার ব্রেকার 
রিবার হাতুড়ির তাল,শ্রমিক ভাইদের বিশাল মেলা, মেলা জমবে এবার.
চলবে নাচ গান খেল ধুলা,হাসবে সবাই মাতবে সবাই,কন্ঠে থাকবে 
যোগ্য কাজ,ন্যায্য মুজুরী চাই। 

The Bengali poems have been translated by Gopika Jadeja with Debabrata Basu, Shivaji Das and Souradip Bhattacharya.

 

The Tamil poem by N. Rengarajan has been translated by Krishna Udayshankar, Gopika Jadeja, Shobhana Udayshankar and Vinod Krishnan. 

This site was designed with the
.com
website builder. Create your website today.
Start Now